মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

এক নজরে

তথ্য পূরণের ছক

মেনু

সাব মেনু

সাব মেনু  (লেভেল-১)

তথ্য সমূহ

 

 

 

 

 

 

 

 

আমাদের সম্পর্কে

 

 

 

 

 

 

 

 

অফিস সম্পর্কিত

 

 

 

 

 

 

 

 

এক নজরে

 

ক্রনং

পদের নাম

স্কেল (২০১৫) ও

 গ্রেড

মঞ্জুরীকৃত পদের সংখ্যা

পুরণকৃত পদের সংখ্যা

শূন্য পদের সংখ্যা

০১

সহকারী পরিচালক

 

22000-53060/-

(9g †MÖW)

০১

০০

০১

০২

জনশক্তি জরিপ অফিসার

12500-30230/-

(11Zg †MÖW)

০২

০০

০২

০৩

উচ্চমান সহকারী কাম হিসাব রক্ষক

 

9700-23490/-

(15Zg †MÖW)

০১

০১

০০

০৪

অফিস সহায়ক

9300-22490/-

(16Zg †MÖW)

০১

০১

০০

            

 

me©‡gvU

০৫

০২

০৩

*  বিদেশগামী কর্মীদের অনলাইন নাম নিবন্ধন ও বায়োমেট্রিক ফিংগার ইমপ্রেশন গ্রহণ

*  বিদেশগামী কর্মীদের অনলাইন ভিসা চেকিং ও অভিবাসন সংক্রান্ত অভিযোগ গ্রহণ, তদন্ত ও নিষ্পত্তির ব্যবস্থা গ্রহণ

*  প্রবাসে মৃত্যুজনিত কারণে লাশ পরিবহন ও দাফন খরচ বাবদ ৩৫,০০০/-, আর্থিক অনুদান বাবদ ৩,০০,০০০/- টাকা

    এবং বিদেশ থেকে ক্ষতিপূরণ, বকেয়া বেতন ও ইন্স্যুরেন্স বাবদ প্রাপ্ত টাকা আদায়ের মাধ্যমে চেক বিতরণ

*  দেশে ও বিদেশে কর্মসংস্থানের বিজ্ঞপ্তি সংগ্রহ ও প্রচার

*  বিদেশ গমনেচ্ছু মহিলা কর্মীদের অভিবাসন সংক্রান্ত তথ্য সেবা ও প্রশিক্ষণ গ্রহণে সার্বিক সহায়তা

*  কর্ম নিয়ে বিদেশ গমনকারী ও প্রত্যাগত প্রবাসী কমীদেরকে অভিবাসন ঋণ সংক্রান্ত সেবা

*  বৈধ চ্যানেলে রেমিটেন্স প্রেরণে অভিবাসী কর্মীদেরকে উৎসাহিত করণে ব্যাপক প্রচার

*  প্রবাসী/প্রত্যাগত/প্রবাসে মৃত্যুবরণকারী কর্মীর মেধাবী সন্তানদের শিক্ষা বৃত্তি প্রদানে সহায়তা

*  অসুস্থ/অক্ষম প্রবাসী কর্মীকে দেশে ফেরত আনাসহ চিকিৎসার ব্যবস্থা করণ

*  বিদেশ থেকে প্রত্যাগত কর্মীদের দেশে আত্ম-কর্মসংস্থান/বিনিয়োগ ব্যবসা বাণিজ্যের  ক্ষেত্রে সহায়তা প্রদান

*  সরকার অনুমোদিত বৈধ রিক্রুটিং এজেন্সী সমূহের নাম ও ঠিকানা সংরক্ষণ এবং অভিবাসীদের সরবরাহ

*  নিরাপদ অভিবাসন ও মানব পাচার রোধকল্পে তৃণমূল পর্যায়ে সচেতনতার অংশ হিসেবে ইউনিয়ন পর্যায়ে লিফলেট, হ্যান্ডবিল, পোস্টার, বুকলেট ইত্যাদি বিতরণ

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আমাদের সম্পর্কে

 

 

 

 

 

 

 

 

অফিস সম্পর্কিত

ভিশন ও মিশন

ভিশন: দক্ষ কর্মীগণের তথ্য সম্বলিত সমৃদ্ধ ডাটা ব্যাংক প্রস্তুতপূর্বক হয়রানীমুক্ত ও নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করা এবং বাংলাদেশকে একটি অন্যতম শীর্ষস্থানীয় কর্মী প্রেরণকারী দেশে পরিণত করা।

মিশন: দক্ষ অভিবাসন ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে বেকার জনগোষ্ঠির বৈদেশিক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি এবং অভিবাসী কর্মীদের অধিকতর কল্যাণ ও অধিকার নিশ্চিত করা।

আমাদের অর্জনসমূহ

 

১. বৈদেশিক কর্মসংস্থান ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন সাধন ও বৈধ উপায়ে বিদেশ গমনের লক্ষ্যে বিদেশগামী কর্মীদের বাধ্যতামূলক রেজিষ্ট্রেশন এবং অনলাইন এ ভিসা যাচাইসহ বিভিন্ন প্রকার সেবা প্রদান করে আসছে। ফলে বিদেশ গমনেচ্ছু কর্মীগণ স্বচ্ছতার সাথে অতি স্বল্প সময়ের মধ্যে বিদেশ গমনের প্রয়োজনীয় কার্যসমূহ সম্পন্ন করতে পারছে। ডিইএমও, নরসিংদী এর মাধ্যমে প্রতিদিন বিদেশ গমনেচ্ছু কর্মীগণ বিএমইটি’র ডাটাবেজে নিবন্ধিত হচ্ছেন। অবৈধ অভিবাসন প্রতিরোধে ও জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ডিইএমও, নরসিংদী এর আওতাধীন জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে ইলেকট্রনিক, প্রিন্ট মিডিয়ার মাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি প্রচার, অভিবাসন সম্পর্কে পুস্তিকা বিতরণ ও সচেতনতামূলক লিফলেট প্রকাশ, পোষ্টার প্রদর্শন সংক্রান্ত প্রচার প্রচারণার কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

২. নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা বৃদ্ধি করায় মধ্যস্বত্বভোগী/দালাল ও প্রতারক চক্রের দৌরাত্ম হ্রাস পেয়েছে। রেমিটেন্স প্রবাহ বৃদ্ধির জন্য প্রচার প্রচারণা অব্যাহত রাখায় রেমিটেন্সের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। বিদেশ গমনেচ্ছু কর্মীগণ সঠিক দিক নির্দেশনা পাওয়ায় ডিইএমও, নরসিংদী এর আওতাধীন জেলা সমূহের বিদেশগামী কর্মীদের সংখ্যা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে।

৩. মাইগ্রেশন রিসোর্স সেন্টার এর মাধ্যমে বিদেশ গমনেচ্ছু কর্মীদের চাহিদা অনুযায়ী তথ্য সরবরাহ ও সচেতনতামূলক প্রচার কার্যক্রমের মাধ্যমে মধ্যস্বত্ত্বভোগী শ্রেণীর দৌরাত্ম অনেকাংশে হ্রাস করা সম্ভব হয়েছে।

৪. সঠিকভাবে নিরাপদ অভিবাসন সম্পূর্ণ করার জন্য এখন বিভিন্ন কার্যক্রম, যেমন: অনলাইন নাম রেজিষ্ট্রেশন, ফিঙ্গারপ্রিন্ট ইম্প্রেশন গ্রহণ, জেলা পর্যায়ে চালু হয়েছে। বিদেশগামী কর্মীদের স্মার্টকার্ড অত্র কার্যালয়ের মাধ্যমে বিতরণের কার্যক্রম বিবেচনাধীন। নারীকর্মীদের গৃহস্থালী কাজে গমনের ক্ষেত্রে বাধ্যতামূলক প্রশিক্ষণ গ্রহণের সুযোগ এখন দেশের ৩৬টি কারিগরী প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে নেয়া যায়। বিদেশ যাবার জন্য প্রাক্ বহির্গমন প্রশিক্ষণ ৬২ কারিগরী প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে বিকেন্দ্রীকরণ করা হয়েছে। এ সকল ব্যবস্থা গ্রহণের ফলে অভিবাসন প্রত্যাশী মানুষের অর্থ, সময় ও যাতায়াত উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়েছে এবং সবচেয়ে বেশী কমেছে হয়রানী। বর্তমান সরকারের ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠায় বিদেশগামী কর্মীদের এখন অনেক সেবা মানুষের দৌরগোড়ায়।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

অফিস সম্পর্কিত

সাম্প্রতিক কমর্কান্ড

  1. বিদেশ গমনেচ্ছু কর্মীদের নাম ডাটাবেজে নিবন্ধীকরণ।
  2. ভিসা প্রাপ্ত বিদেশ গমনেচ্ছু কর্মীদের ফিঙ্গারপ্রিন্ট গ্রহণ।
  3. পেশা নির্দেশনা।
  4. বৃত্তিমূলক কারিগরি প্রশিক্ষণে উদ্বুদ্ধ করণে সচেতনতামূলক প্রচারণা।
  5. অভিবাসন ব্যবস্থাপনায় মধ্যস্বত্ত্বভোগী শ্রেণী বিলোপে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রচারণা।
  6. প্রবাসী কমীর্দের কল্যাণ নিশ্চিতকরণ ও তাদের অধিকার সংরক্ষণ।
  7. মৃত কর্মীদের মরদেহ দেশে আনয়ন ও দাফন সংক্রান্ত কার্যাবলী এবং মৃতের পরিবারের ওয়ারিশদের মধ্যে আথির্ক অনুদান বিতরণ।
  8. ক্ষতিগ্রস্থ/বিপদগ্রস্থ প্রবাসী কর্মীদের আর্থিক ও প্রয়োজনীয় ক্ষতিপূরণ আদায়ের নিমিত্ত আইনী সহায়তা প্রদান।
  9. প্রবাসী কর্মীর মেধাবী সন্তানদের শিক্ষাবৃত্তি প্রদান।
  10. অনলাইনে ভিসা যাচাই।
  1. অডিট আপত্তি নিষ্পত্তির ব্যবস্থা করণ।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

অফিস সম্পর্কিত

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা

১. নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করার জন্য তৃণমূল পযার্য়ে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ কর্মীগণের নিবন্ধনের মাধ্যমে সমৃদ্ধ ডাটা ব্যাংক প্রস্তুত।

২. মধ্যস্বত্ত্বভোগী ও দালাল শ্রেণী নির্মূল ।

৩. জেলার আওতাধীন বিদেশ গমনেচ্ছু কমীর্দের রেজিষ্ট্রেশন, ফিঙ্গারপ্রিন্ট, বহির্গমন ছাড়পত্র প্রদান।

৪.  প্রত্যাগত কর্মীদের কর্মসংস্থান ও পূর্ণবাসনে সহায়তা প্রদান।

৫. জেলা প্রশাসন, স্থানীয় প্রশাসন (ইউনিয়ন পর্যায়ে),ডিইএমও,এনজিও এবং টিটিসি সমূহের মধ্যে সমন্বয় সাধন করা।

ঘটনাপুঞ্জ

১৯৪৫ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর বৃটিশ ভারতে যুদ্ধ ফেরত সৈনিকদের বেসামরিক পেশায় পুনর্বাসন করার লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার সনদ ও সুপারিশমালার আলোকে উপমহাদেশে এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জ প্রতিষ্ঠা করা হয়। পরবর্তীতে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার সনদ ৮৮ এর সুপারিশের আলোকে বেকারদের কর্মসংস্থানের উদ্দেশ্যে এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জ কাজ করতে থাকে। বাংলাদেশ স্বাধীনতার পর মধ্যপ্রাচ্যের তৈল সমৃদ্ধ দেশসমূহে প্রচুর সংখ্যক শ্রমিকদের চাহিদার সাথে সঙ্গতি রেখে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার সনদ নং ৮৮, ৯৬, ৯৭ এর সুপারিশমালার আলোকে ৩ এপ্রিল ১৯৭৬ সালে তদানিন্তন শ্রম দপ্তরের অধীন জনশক্তি ও কর্মসংস্থান শাখাকে আলাদা করে জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো নামে সম্পূর্ণ আলাদা একটি সরকারী নির্বাহী প্রতিষ্ঠান সৃষ্টি করা হয়। যাহা পরবর্তীতে ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যা ও বেকার জনগোষ্টির চাহিদার নিরিখে ১৯৮২ সালে বৃহত্তর ২১টি জেলায় পূর্ব নামকরণ চাকুরী বিনিয়োগ কেন্দ্র পরিবর্তন করে জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস নামে প্রতিষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে ১৯৯৫ সালে আরও ২১টি জেলায় জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস প্রতিষ্ঠা করা হয়। উক্ত ৪২টি জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস বর্তমানে জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো এবং প্রবাসী, কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীনে ন্যস্ত আছে। অভিবাসী কর্মজীবীদের কল্যাণ ও অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে জাতিসংঘ ১৮ই ডিসেম্বরকে “আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস” হিসেবে ঘোষণা করেছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

জনবল

অফিস প্রধান

সহকারী পরিচালক

সাংগঠনিক কাঠামো

০১।  সহকারী পরিচালক

  ০১ জন

 

 

০২।  জনশক্তি জরিপ অফিসার

০২ জন

 

 

০৩।  ইউডিএ-কাম-হিসাব রক্ষক

০১ জন

 

কর্মকর্তাগণ

জনাব এম. ডি. জাহিদুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক

কর্মচারীবৃন্দ

০১। জনাব মোঃ হারুন-অর-রশিদ শিকদার, জনশক্তি জরিপ অফিসার

 

০২। জনাব মোঃ শহিদুল আলম, জনশক্তি জরিপ অফিসার

 

০৩। জনাব মোঃ ইসমাইল হোসেন, উচ্চমান সহকারী কাম হিসাব রক্ষক

উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ

উপজেলা পযার্য়ে কোন অফিস নাই

তথ্য প্রদানকারী কর্মকর্তা

জনাব মোঃ শহিদুল আলম, জনশক্তি জরিপ অফিসার

সেল: ০১৭১৪-৩৮৯৬৩২

                     

 

ছবি


সংযুক্তি



Share with :

Facebook Twitter